রংপুর

উলিপুরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উৎসব সম্পন্ন

  প্রতিনিধি ২৪ অক্টোবর ২০২৩ , ৪:৩৬:৪৭ প্রিন্ট সংস্করণ

উলিপুরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উৎসব সম্পন্ন

কুড়িগ্রামের উলিপুরে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এর আগে মণ্ডপগুলোতে চলে সিঁদুর খেলা আর আনন্দ-উৎসব। হিন্দু সধবা নারীরা প্রতিমায় সিঁদুর পরিয়ে দেন এবং নিজেরাও একে অন্যকে সিঁদুর পরিয়ে দেন। চলে মিষ্টিমুখ, ছবি তোলা আর ঢাকের তালে তালে নাচ-গান।

এবার ঘোড়ায় চড়ে মর্ত্যলোক থেকে দশভুজা দেবীর বিদায়। শেষবারের মতো মন্ত্রপাঠ আর উলুধ্বনিতে দেবী বন্দনা। ঘোড়ায় চড়ে এসেছিলেন দেবী দুর্গা। ঢাক-ঢোল-শঙ্খ আর ধুপ ধুনোয় তার আরাধনায় মগ্ন ছিলেন ভক্তরা। প্রতি বছর বিজয়া শোভাযাত্রার মধ্য দিয়েই চলে প্রতিমা বিসর্জনের পর্ব। মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শুরু হয় পাঁচদিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। মন্দিরের পুরোহিতগণ সেখানে পূজা-অর্চনা করেন এবং উলুধ্বনি দেন।

মন্দিরে আগত সনাতন ধর্মাম্বলীরা একে অপরকে সিঁদুর পরিয়ে বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। পরে সেখানে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। গত ২০ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শুরু হয় পাঁচ দিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। প্রতিবারের মতো মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাষ্টমী ও মহানবমীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজার হাজার নারী-পুরুষ ধর্মীয় নানা আচার-অনুষ্ঠান পালন করেন। দশমীর দিনে সকালে সিঁদুর উৎসবের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এবং সন্ধ্যায় প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়।

উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের ফাঁসিদাহ বাজারের সার্বজনীন দূর্গা মন্দিরের পুরোহিত ধনঞ্জয় গোস্বামী বলেন, এবারে ঘোড়ায় চড়ে এসেছিলেন দূর্গা। আবার ঘোড়ায় চড়ে দেবির বিদায়। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বড় ধর্মীয় উৎসব এবারে প্রশাসনের সহযোগিতায় সুষ্ঠভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানান তিনি।

উপজেলার সর্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটির সভাপতি সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা বলেন, এবারে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বড় ধর্মীয় উৎসবে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠ ভাবে পালিত হয়েছে। এজন্য আমরা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই। উল্লেখ্য, উলিপুর উপজেলায় এবার ১শ ১৮টি মন্ডপে শারদীয় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উলিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তামবিরুল ইসলাম জানান, উপজেলার সকল মন্দিরে দুই স্তর বিশিষ্ট প্রশাসনিক নজরদারি ছিল এবং প্রতিমা বিসর্জন দেয়া পর্যন্ত ছিল। প্রশাসনের তৎপর খুব জোরালো থাকায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা তাদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব সুষ্ঠভাবে পালন করতে পেয়েছেন। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে জানান তিনি।

আরও খবর

Sponsered content